ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস : কেন এবং কিভাবে কাজ করে?

0
15

প্রত্যেকবছরই  গুগল তাদের ডেভেলপার কনফারেন্সে নতুন একটি করে অ্যান্ড্রয়েড ভার্সন অ্যানাউন্স করার সাথে সাথে অ্যান্ড্রয়েড ওএসে আরও অনেক নতুন নতুন ফিচার যোগ করতে থাকে এবং সেগুলোর Beta Testing এর পরে আস্তে আস্তে গ্লোবাল কনজিউমারদের কাছেও রোলআউট করতে থাকে। প্রত্যেকবছরই গুগল অ্যান্ড্রয়েডে নতুন নতুন ইউজফুল ফিচার যোগ করে এবং অনেক নতুন নতুন কাস্টোমাইজেশনও করতে থাকে। গত ২ বছর আগে গুগল তাদের IO 2016 ইভেন্টে প্রথম এই ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস (Instant Apps) প্রোজেক্টটি অ্যানাউন্স করে। আর আমার মতে, এই প্রোজেক্টটি গুগলের অন্যতম ভালো ডিসিশনগুলোর মধ্যে একটি। আসলে এই ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস বিষয়টি দিয়ে গুগল কি বোঝাতে চেয়েছে? তাদের প্ল্যানই বা কি এটা নিয়ে? আর অ্যান্ড্রয়েড ইউজারদের কি সুবিধা হবে এই ইনস্ট্যান্ট অ্যাপসের কারণে? আজকে এই সম্পূর্ণ বিষয়টি নিয়েই আলোচনা করবো।

ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস কি?

প্রথমত আপনি যদি ওয়েব অ্যাপ কি এবং কিভাবে কাজ করে জেনে থাকেন, তাহলে আপনি ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস এর বিষয়টিও ভালোভাবে বুঝবেন। কারণ এই দুটি জিনিসের কনসেপ্টের মধ্যে অনেকটাই মিল আছে। সাধারনত আপনি বা আমি যদি কোন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ব্যবহার করতে চাই তাহলে আমাদের কি করতে হবে? আমাদেরকে প্লে স্টোরে যেতে হবে এবং অ্যাপটি ডাউনলোড এবং ইন্সটল করতে হবে। সেজন্য আমাদের অনেকটা ডেটা এবং সময়ও খরচ হয়ে যাবে। এছাড়া অ্যাপটি ইন্সটল করার পরে আমাদের স্মার্টফোনের কিছুটা স্পেসও কনজিউম করবে অ্যাপটি। পরিবর্তে আমরা যা করতে পারি তা হচ্ছে, অ্যাপটির ইন্সটলেশন ফাইল অর্থাৎ APK ফাইল থেকে অ্যাপটি ফোনে সাইডলোড করে ইন্সটল করে ফেলতে পারি। কিন্তু সেক্ষেত্রে ঐ অ্যাপটির ইন্সটলেশন ফাইল ডাউনলোড করতেও আমাদের ডেটা এবং সময় কনজিউম হচ্ছে। এছাড়া অ্যাপটি ইন্সটল করার পরে সেটি যতটা স্পেস কনজিউম করবে তাও কোনোভাবে বন্ধ করা সম্ভব না। এখানেই মূলত চলে আসে ইনস্ট্যান্ট অ্যাপসের বিষয়টি।

ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস হচ্ছে গুগল প্লে স্টোরের এমন একটি ফিচার যার সাহায্যে আপনি কোন অ্যাপ ইন্সটল না করেই ব্যবহার করতে পারবেন আগেই। ব্যবহার করার পরে যদি আপনার ইচ্ছা হয় তাহলে অ্যাপটি পারমানেন্টলি ইন্সটল করে ফেলতে পারবেন। ধরুন, আপনি অনলাইন থেকে একটি হেডফোন অর্ডার করতে চান। আপনি যদি কোন অনলাইন শপের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ থেকে আপনার পছন্দের হেডফোনটি কিনতে চান, সেক্ষেত্রে আপনাকে ঐ একটি প্রোডাক্ট কেনার জন্যই সম্পূর্ণ অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপটিই ইন্সটল করতে হচ্ছে। যার ফলে আপনার ডেটা এবং সময় দুটিই বেশি লাগছে। কিন্তু গুগল ইনস্ট্যান্ট অ্যাপসের সাহায্যে আপনি ঐ শপিং অ্যাপটি কোনরকম ইন্সটল না করেই অ্যাপটি ব্যবহার করে আপনার প্রোডাক্ট অর্ডার করতে পারবেন। কিন্তু সেটা তখনই পারবেন যখন অ্যাপটির ডেভেলপার অ্যাপে ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস ফিচারটি আগে থেকেই ইমপ্লিমেন্ট করে রাখবে। কিন্তু সেটা গুগল এবং ঐ অ্যাপটির ডেভেলপার এর ব্যাপার, আপনার না। আপনি যে ব্যাবহারিক লাভটি পাবেন তা হচ্ছে, আপনি অ্যাপটি ইন্সটল করার হ্যাসেলের মধ্যে না গিয়েই ফুল ফিচারড অ্যাপটি আগে থেকেই ব্যবহার করতে পারছেন। এছাড়া অ্যাপটি ইউজ করার সম্পূর্ণ এক্সপেরিয়েন্সও একই থাকবে যদি আপনি ইন্সটল নাও করেন। যার ফলে, আপনার সময় বাঁচছে, কম ডেটা দরকার হচ্ছে এবং আপনার ফোনের কোন স্টোরেজও খরচ করতে হচ্ছেনা। কারণ, অ্যাপটি আপনি ক্লোজ করে দেয়ার পরে সেটার আর কোনরকম অ্যাক্টিভিটি থাকছে না। যেহেতু আপনি অ্যাপটি ইন্সটলই করেন নি। আর এটা শুধুমাত্র অনলাইন শপিং অ্যাপ এর ক্ষেত্রেই হবে এমনটা না। শপিং জিনিসটি আমি শুধুমাত্র উদাহরনসরূপ ব্যবহার করেছি।

আর কিছুদিন আগে গুগল তাদের এই ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস ফিচারটি নিয়ে একটি আপডেট অ্যানাউন্স করে। তা হচ্ছে, এবার তারা এই ফিচারটি অ্যান্ড্রয়েড গেমসের ক্ষেত্রেও ব্যবহার করছে। অর্থাৎ, যেসব গেম ডেভেলপার তাদের গেমে ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস ফিচারটি ইমপ্লিমেন্ট করে রাখবে, ইউজাররা সেসব গেম ইন্সটল করার আগেই গেমটির বেসিক লেভেলগুলো কিছুক্ষন খেলে ট্রাই করতে পারবে। এরপর ভালো লাগলে ইন্সটল করার অপশন তো থাকছেই। অর্থাৎ, এই বিষয়টিকে ইনস্ট্যান্ট গেমসও বলতে পারেন  এছাড়া গেমটির ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস ভার্সন ট্রাই করার সময় আপনি প্রায় ফুল ইন্সটলড অ্যাপের মতই একইরুকম পারফরমেন্স পাবেন। এই ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস এবং গেমসের ক্ষেত্রে ইনস্ট্যান্ট অ্যাপসের বিষয়টিকে আপনি মার্কেটে গিয়ে টিশার্ট কেনার আগে ট্রায়াল রুমে গিয়ে শার্টটি ট্রাই করে দেখার ব্যাপারটির সাথে তুলনা করতে পারেন।

কিভাবে ব্যবহার করবেন?

আশা করি আপনি এতক্ষনে ভালোভাবেই বুঝেছেন যে ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস কি এবং কেন দরকার। কিন্তু আপনি আপনার স্মার্টফোনে ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস ব্যবহার করবেন কিভাবে সেটা হয়তো এখনো জানেন না। আপনাকে ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস ব্যবহার করতে হলে আপনার স্মার্টফোনটি কমপক্ষে অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ তে রান করতে হবে। কারণ, এই ফিচারটি অ্যান্ড্রয়েড ৭.০ থেকেই শুরু করেছে গুগল। প্রথমত, প্লে স্টোরের সব অ্যাপস এবং সব গেমস কিন্তু ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস সাপোর্টেড নয়। আপাতত খুবই কম সংখ্যক বা হাতে গোনা কয়েকটি অ্যাপস এবং কয়েকটি গেমস এই ফিচারটি সাপোর্ট করে। এটি যেহেতু এখনও কিছুটা নতুন ফিচার, তাই সব অ্যাপ এবং গেমের ডেভেলপার এই ফিচারটি তাদের অ্যাপে এবং গেমে ইমপ্লিমেন্ট করে পারেনি। তবে আশা করা যায় সামনের দিনগুলোতে রিলিজ হওয়া অধিকাংশ অ্যাপ এবং গেম এই ফিচারটি সাপোর্ট করবে। আপাতত যেসব অ্যাপস এই ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস ফিচারটি সাপোর্ট করে, সেগুলোর লিস্ট এখানেদেখতে পারেন। আর যেসব গেমস এই ফিচারটি সাপোর্ট করে সেগুলোর লিস্ট এখানেদেখতে পারেন।

আপনাকে ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস এক্সপেরিয়েন্স করতে হলে এই সাপোর্টেড অ্যাপস এবং গেমসের মধ্যে যেকোনো একটির প্লে স্টোর পেজ ওপেন করতে হবে। যদি অ্যাপটি সাপোর্টেড হয়, তাহলে আপনি অ্যাপটি বা গেমটির ইন্সটল বাটনের বাম পাশে আরও একটি বাটন পাবেন যার নাম Try Now। এই বাটনটিতে ক্লিক করলেই অ্যাপটি বা গেমটি অল্প কিছু সময়ের জন্য লোড হয়ে ওপেন হবে এবং আপনি অ্যাপটির বেসিক কিছু ফিচার বা গেমের ক্ষেত্রে গেমটির বেসিক কয়েকটি লেভেল খেলে গেমটি ট্রাই করতে পারবেন। এরপর অ্যাপ থেকে বের হয়ে গেলেই সব অ্যাক্টিভিটি শেষ হয়ে যাবে। এরপর আপনি চাইলে অ্যাপটি বা গেমটি ইন্সটল করতে পারবেন।


আশা করি এতক্ষনে নিশ্চই কিছুটা হলেও ধারনা করতে পেরেছেন যে গুগলের এই ইনস্ট্যান্ট অ্যাপস কি এবং কেন দরকার। আজকের মত এখানেই শেষ করছি। আশা করি আজকের আর্টিকেলটিও আপনাদের ভালো লেগেছে। কোন ধরনের প্রশ্ন বা মতামত থাকলে অবশ্যই কমেন্ট সেকশনে জানাবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here