এবার এন্ড্রয়ড মোবাইল দিয়ে, চোখের পলকেই হ্যাক হবে আইডি ২০১৮

0
43

এন্ড্রয়ড মোবাইল দিয়ে এবার চোখের পলকেই হ্যাক হবে আইডি ২০১৮

 0 টিউমেন্টস
 173 দেখা
জোসস করেছেন
      
হ্যাকিংসবাইকে স্বাগতম জানাচ্ছি হ্যাক স্কুল বিডির টিউনে। আশা করি সবাই ভালো আছেন।

আজকের টিউনে আমি আপনাদের সামনে এন্ড্রয়ড মোবাইলের মাধ্যমে ফেইসবুক আইডি হ্যাকিং এর সবচেয়ে সহজ পদ্ধতিটি তুলে ধরার চেষ্টা করবো।
আজকের এই টিউনে আমি আপনাদের দেখাবো কিভাবে একই নেটওয়ার্কের সাথে যুক্ত থাকা অন্য ব্যক্তিদের ফেইসবুক একাউন্ট হ্যাক করা যায় এবং তাও শুধুমাত্র একটি ক্লিকের মাধ্যমে।
চলুন তাইলে কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক।
এই টিউনটি সম্পুর্ন শিক্ষনীয় উদ্দেশ্যে লিখিত যাতে সবাই সতর্ক হতে পারে, কেউ খারাপ কার্যে ব্যবহার করলে কোনভাবেই আমি কিংবা টেকটিউনস কর্তিপক্ষ দায়ী থাকবেনা।

কিভাবে ফেইসবুক একাউন্ট হ্যাক করবেন এন্ড্রয়ড ফোনের মাধ্যমে।

এরজন্যে আমাদের প্রয়োজন হবে হবে Faceniff নামে একটি এন্ড্রয়ড এপ্লিকেশনের। FACENIFF হচ্ছে একটি এন্ড্রয়ড এপ্লিকেশন, এই এপ্লিকেশনটির কাজ হচ্ছে এই এপ্লিকেশন ব্যবহার করে আপনি ওয়েব সেশন ইন্টারসেপ্ট করতে পারবেন, এবং তার মাধ্যমে আপনারা ভিকটিমের নানান ধরনের একাউন্ট যেমন ফেইসবুক, টুইটার ইত্যাদি একাউন্ট এক মিনিটের মধ্যেই হ্যাক করতে সক্ষম হবেন।
আবার বলে নিচ্ছি এই মেথডটি শুধুমাত্র কাজ করবে একই নেটওয়ার্কে কানেক্টেড থাকা ডিভাইসের ক্ষেত্রে।
চলুন তাহলে শুরু করা যাক প্রথমেই এই লিঙ্ক থেকে Faceniff ডাউনলোড করে নিন

এবার আপনি যে ওয়াইফাই কানেকশনটি ব্যবহার করেন সেটার সাথে কানেক্টেড হউন এবং এপ্লিকেশনটি ওপেন করুন।
এবার লাল বাটনে ক্লিক করুন এটা সবুজ বাটনে পরিনত হবে এবং স্নিফার তার কাজ শুরু করে দিবে।
এবার এন্টার বাটনে প্রেস করুন এপ্লিকেশনে আপনি দেখতে পাবেন সেসব একাউন্টগুলো যেসব এখন আপনার সাথে একই নেটওয়ার্কে সংযুক্ত হয়ে ফেইসবুক, ইউটিউব, টুইটার ইত্যাদি একাউন্ট ব্যবহার করছে।
স্নিফ শেষ হওয়ার পরে আপনি অনেকগুলো সেশন দেখতে পাবেন সেখান থেকে যেকোনো একটিতে ক্লিক করুন সাথে সাথে আপনি Faceniff ব্রাউজারের মাধ্যমে যে আইডিটির হ্যাকেড সেশনে ক্লিক করেছেন সে আইডিতে লগিন হয়ে যাবেন!

কিভাবে এই ধরনের হ্যাকিং এর  হাত থেকে নিজে সুরক্ষিত থাকবেনঃ-

সব সময় https সার্ভিস ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন ওয়েবসাইট ভিজিট করার সময়ে।
কোনো পাবলিক ওয়াইফাই তে যথাসম্ভব কানেক্ট না করে ইন্টারনেট ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন যদি আপনার কাছে ইন্টারনেটের খরচের চেয়ে নিজের নিরাপত্তা বেশি গুরুত্বপুর্ন মনে হয়। এছাড়া আপনারা পাবলিক ওয়াইফাই ব্যবহার করলেই ভিপিএন যেমন হটস্পট শিল্ড এই ধরনের ভিপিএন ব্যবহার করে করতে পারেন এতে করে আপনার পিসি থেকে যে ডাটা সেন্ড হচ্ছে তা এনক্রিপ্টেড অবস্থায় যাবে এবং হ্যাকার আপনার ডাটা ক্যাপচার করতে পারলেও সেটা দিয়ে কিছু করতে পারবে না।
সবাইকে ধন্যবাদ টিউনটি পড়ার জন্যে, ভালো লাগলে এবং অন্যদের সতর্ক করার জন্যে এক্ষুনি টিউনটি শেয়ার করুন।
কোনো বিষয়ে না বুঝলে অবশ্যই টিউনমেন্ট করুন, আমার সাথে যোগাযোগের জন্যে হ্যাকিং বিষয়ক জিজ্ঞাসার জন্যে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here