যে সমস্যার মুখোমুখি হতে হয় সেরা বাবা হতে হলে।

0
6

প্রত্যেক বাবাই চান নিজের সন্তানের চোখে সেরা হয়ে উঠতে। আরো একটু অন্যরকম হয়ে উঠতে, ভালো বন্ধু হয়ে উঠতে। নানারকম সমস্যার মুখোমুখি হতে হয় একজন পুরুষকে নিজের সন্তানের কাছে সেরা বাবা হয়ে উঠতে। আর সেই সমস্যাগুলোর কথাই নিচে দেওয়া হল।

১।লুকোনো ভালোবাসা

অনেক সময় মায়ের কাছে বাচ্চারা সব জিনিসের জন্যে আবদার করতে পারেনা। আপনার সন্তানের কোন একটা খেলনা বা বই পছন্দ হয়েছে কিন্তু মাকে বলতে পারছেনা। আর তাই সে চুপিচুপি আপনার সাহায্য চাইছে। আপনার সন্তানকে সাহায্য করুন। এই অল্প একটু লুকিয়ে দেখানো ভালোবাসাটাও হয়ে উঠতে পারে অসাধারন।

২. সন্তানকে বুঝতে পারা

সেরা বাবা হতে হলে আপনাকে সন্তানের মন বুঝতে পারতে হবে। তার ভয়, তার ভালোবাসা, তার আনন্দ সবটাই যেন সেকেন্ডের ভেতরেই ধরে ফেলতে পারেন আপনি।
৩. পরিবারকে অগ্রাধিকার দেওয়া

জীবনের গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারেই নয়, হতে পারে সকালবেলা ঘুম থেকে না ওঠার মতন ছোটখাটো ব্যাপারেও। কিন্তু একজন সেরা বাবা কেবল নিজের কথাই ভাবেন না। নিজের সন্তান আর পরিবারের কথাও ভাবেন । সেরা বাবা হয়ে উঠতে গেলে সন্তানকে রাখতে হবে পরিবারের মতামত, ইচ্ছে-অনিচ্ছাকে প্রাধান্য দিতে হবে।

৪. খোলাখুলি কথা বলা

খোলাখুলি কথা বলার মত প্রকাশ রাখাতে হবে। সেই সাথে মানসিক অবস্থার দিকেও খেয়াল রাখতে হবে। অনেক সময় সব কথা তার মাকে বলতে পারেনা। বিশেষ করে যৌনসংক্রান্ত বিষগুলোতে। সেরা বাবা হতে হলে সন্তানের সেসব সমস্যাকে মোকাবেলা করার মতো মানসিকতা গড়ে তুলতে হবে।
৫. গুরুত্বপূর্ণ অনুভব করানো

সেরা বাবা হতে হলে আপনাকে সবকিছুর ওপরে নিজের সন্তানকে প্রাধান্য দিতে হবে। তাকে মনে করাতে হবে যে আর কারো কাছে না হোক, আপনার কাছে সে কতটা গুরুত্বপূর্ণ। অন্য কারো অবহেলা মেনে নিতে পারলেও সন্তান তার বাবার কাছ থেকে পাওয়া অবহেলা সহ্য করতে পারেনা।

৬. ভেঙে না পড়া

একজন সেরা বাবা হতে গেলে সন্তানের মাথার ওপর গাছের মতন ছায়া দিয়ে সবসময়ই তাকে বোঝাতে হবে যে আপনি তার সাথে আছেন। কোন ভয় নেই। খারাপ সময় মানুষের জীবনে বারবার আসে। কিন্তু এসময় ভেতরে ভেতরে কষ্ট বা ভয় পেলেও আপনাকে শান্ত থাকতে হবে সন্তানের সামনে।

৭. ছেলেমানুষী করা

আপনার সন্তান আপনাকে তখনি কাছের বলে ভাবতে শুরু করবে যখন সে আপনার সাথে নিজের মিল খুঁজে পাবে। আর তাই সেরা বাবা হতে হলে অনেক সময়ই সন্তানকে খুশি রাখতে হবে। বাবা তো অনেকেই হয়। কিন্তু সন্তানের সবচাইতে কাছের বন্ধু হিসেবে কয়জনই বা নিজেকে তুলে ধরতে পারে।

৮. মনে রাখতে পারা

সেরা বাবা হবার জন্যে আপনাকে সন্তানের বিশেষ দিনগুলোর কথা মনে রাখতেই হবে। সেটা হতে পারে তার জন্মদিন বা অন্যকিছু।

৯. আদর্শ হিসেবে তৈরি করা

আপনি দেখতে এমন কিছু আহামরী নন। কিন্তু তারপরেও যতটুকুই আপনি হোন না কেন আর যেমনটাই হোন না কেন, কিছু ক্ষেত্রে নিজেকে সন্তানের আদর্শ হিসেবে তৈরি করাটা আপনার অন্যতম একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজের ভেতরেই পড়ে।

১০. সাহায্য করা

সন্তানের কাপড় পাল্টানো, ঘরের রান্না, রাতের বেলা গল্প শোনানোর মতন কাজগুলো আপনাকে করতে হবে। এই সাহায্যকারী মনোভাব আপনার সন্তানের মনকেও পাল্টে দেবে।

প্রিয় বন্ধুগণ আমার এই পোষ্টটি আপনাদের কেমন লাগল জানাবেন।
সবাই ভালো থাকুন।
ধন্যবাদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here